বিজিবি-বিজিপির যৌথ টহল নাফ নদীতে

কক্সবাজার প্রতিনিধি | 2018/03/07 | 03:20

কক্সবাজারের টেকনাফের নাফ নদীতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) যৌথ টহল শুরু হয়েছে, যা সীমান্তে উত্তেজনা প্রশমনের ইঙ্গিত দিচ্ছে।

সোমবার বেলা ১১টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত তারা যৌথ টহল দেয় বলে টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আসাদুজ জামান চৌধুরী জানান।

বান্দরবানের ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমারের সেনা সমাবেশ নিয়ে দুদেশের উত্তেজনার কয়েকদিনের মধ্যে এই যৌথ টহলের ব্যবস্থা হলো।   

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে সীমান্তে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিবেশ যাতে সৃষ্টি না হয়, সেই লক্ষ্যে বাংলাদেশ-মিয়ানমার জলসীমার মাঝামাঝি নাফ নদীতে বিজিবি ও বিজিপি যৌথ টহল শুরু হয়েছে।

“স্পিডবোটের ওই টহলে বিজিবির ১৩ জন ও বিজিপির ১৬ জন সদস্য অংশ নেন।” 

এই যৌথ টহল নিয়মিত নয় উল্লেখ করে কর্নেল আসাদুজ্জামান বলেন, কয়েকদিন পরপর এ যৌথ টহল চলবে। এ ব্যাপারে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কাছে একটি সূচি পাঠানো হয়েছে। সে ব্যাপারে তাদের মতামত পাওয়া গেলে সেভাবে টহল দেওয়া হবে। এ টহল চলবে দিনের বেলায়।

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে গত বছরের অগাস্টের শেষ সপ্তাহ থেকে রাখাইনের রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আসতে শুরু করে। তখন থেকে এ পর্যন্ত অন্তত সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে।  

গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমের তমব্রু সীমান্তের ওপারে অবস্থানরত মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ সদস্যরা দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে বলে স্থানীয়রা জানান।

তবে পরদিন বিজিবির সঙ্গে পতাকা বৈঠকে বিজিপি গুলি বর্ষণের কথা অস্বীকার করেছে। তবে সৈন্য সমাবেশ অভ্যন্তরীণ প্রয়োজনে করে বলে দাবি করেছে।

READ : 137 times

এইদিনে