রাজধানীতে জনসভা-মিছিল না করার ঘোষনা আ.লীগের, ভিন্ন কিছু দেখছে বিএনপি

Online Desk | 2017/02/10 | 10:11

ছুটির দিনে ছাড়া রাজধানীতে কোনো জনসভা করা হবে না জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “আমরা রাজনীতি করি জনগণের জন্য। মানুষের দুভোর্গ হয়, কষ্ট পায়- এমন কর্মসূচি আমরা গ্রহণ করব না। এ জন্য আগামী মার্চে তিনটি জাতীয় দিবসে জনসভা বা মিছিলের পরিবর্তে ঘরোয়া আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। কর্মসূচি দিয়ে মানুষের ভোগান্তি করতে চাই না।”

শুক্রবার সকালে রাজধানীর কাকরাইলে যুবলীগের পাঠাগার ‘জাগরণ লাইব্রেরি’ উদ্বোধন উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা জানান। রাজমনি সিনেমা হলের পাশে এই পাঠাগার সবার জন্য উন্মুক্ত। সেখানে যুবলীগের প্রকাশনার প্রায় ৩০০ বই ছাড়াও অসংখ্য বই আছে। অনুষ্ঠানে রাজনীতি ছাড়ও রাজনৈতিক কর্মসূচির কারণে যানজট নিয়েও কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

নিত্য যানজটের রাজধানীতে বড় রাজনৈতিক দলের সমাবেশ বা শোভাযাত্রার মত কর্মসূচি থাকলে ভোগান্তি এক নিয়মিত চিত্র। এমনকি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ হলেও যানজট তীব্র আকার ধারণ করে। এই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নিল ক্ষমতাসীন দল।

ওবায়দুর কাদের বলেন, ‘যানজট নিরসনে নতুন করে চিন্তা ভাবনা শুরু করেছি। জনসভা বাদ দিয়ে ঘরোয়া কর্মসূচি নিয়েছি। রাজধানীতে আর কোন র‌্যালি, সমাবেশ করা হবে না।’

এরই মধ্যে ছাত্রলীগ ঘোষণা দিয়েছে, সাপ্তাহিক ছুটির দিন ছাড়া কোনো কর্মসূচি করবে না তারা। বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী অবশ্য সরকারি দলের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, বিএনপিকে ঠেকাতেই সরকার এই পদক্ষেপ নিয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক কর্মসূচির কারণে জনগণের ভোগান্তি হয়। তিনি বলেন, ‘আমরা রাজনীতি করি জনগণের জন্য। আর রাজনৈতিক কর্মসূচির কারণে জনগণের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করে, সেই কর্মসূচি থেকে বিরত রাখার চেষ্টা করব।’

বিএনপির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গত নির্বাচনে অংশ না নিয়ে আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছে। এখন তারা বেপরোয়া দলে পরিণত হয়েছে। ‘বিএনপি কখন কোন দুর্ঘটনা ঘটায় বলা যায় না’-এমন মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মহাসড়কে বেপরোয়া চালক যেমন গাড়ি চালালে দুর্ঘটনা ঘটে, তেমনি বেপরোয়া বিএনপি কখন কী করে, কখন কী দুর্ঘটনা ঘটায় তা বলা যাবে না।’

প্রধান নির্বাচন কমিশনার নিয়ে বিএনপির প্রতিক্রিয়ার জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি ছাড়া আর কেউ কি সিইসি নিয়ে সমালোচনা করেছে? বিএনপি কখন কি বলে এটা তারা নিজেরাও জানে না।’

অশিক্ষিত, স্বল্পশিক্ষিত লোক দিয়ে বাংলাদেশের রাজনীতির অঙ্গন ভরে গেছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যোগ্যতা অর্জনের জন্য পড়াশুনা করতে হবে। অন্যথায় পাহারাদার হতে হবে। এ জন্য বই পড়ে যোগ্যতা অর্জন করতে হবে।’

যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণে সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

READ : 441 times

এইদিনে