প্রধানমন্ত্রীর বিমানে ত্রুটিঃ রিমান্ড শেষে কারাগারে দুই কর্মকর্তা


প্রধানমন্ত্রীর বিমানে ত্রুটিঃ রিমান্ড শেষে কারাগারে দুই কর্মকর্তা

অনলাইন ডেস্ক | 2017/01/25 | 11:50

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানে ত্রুটির ঘটনায় করা মামলায় বাংলাদেশ বিমানের দুই কর্মকর্তাকে দুই দফায় ১২ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

ঢাকা মহানগর হাকিম মাযহারুল হক মঙ্গলবার আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এরা হলেন- বিমানের প্রকৌশলী (ইঞ্জিনিয়ারিং অফিসার) নাজমুল হক ও কনিষ্ঠ টেকনিশিয়ান শাহ আলম।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিএমপির কাউন্টার টেররিজমের পরিদর্শক মাহবুবুল আলম দুই দফা রিমান্ড শেষে আসামিদের আদালতে হাজির করে কারাগারে পাঠানোর আবেদন করেন।

আবেদনে তিনি বলেন, “আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ষড়যন্ত্র করে বিমানে ইচ্ছাকৃতভাবে যান্ত্রিক ত্রুটি করে, যাতে প্রধানমন্ত্রীর ক্ষতি করার উদ্দেশ্যে ছিল বলে প্রতীয়মাণ হয়। আসামিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদেও আসামিরা কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। মামলাটির সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তথ্য যাচাইয়ের কাজ চলছে।”

এরআগে এই দুই আসামিকে গত ১৮ জানুয়ারি পাঁচ দিন এবং ১০ জানুয়ারি সাত দিনের রিমান্ডে পাঠায় আদালত।

এই ঘটনায় এর আগে বিমানের আরও সাত কর্মকর্তা দুই দফায় ১৫ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে আছেন।

এরা হলেন- বিমানের চিফ ইঞ্জিনিয়ার (প্রোডাকশন) দেবেশ চৌধুরী, ভারপ্রাপ্ত চিফ ইঞ্জিনিয়ার (পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রণ) এস এ সিদ্দিক, ভারপ্রাপ্ত মুখ্য প্রকৌশলী (এনসিসি) বিল্লাল হোসেন, প্রকৌশল কর্মকর্তা লুৎফর রহমান, সামিউল হক, মিলন চন্দ্র বিশ্বাস ও জাকির হোসাইন।

গত ২৭ নভেম্বর হাঙ্গেরি যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানের একটি বোয়িং যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে তুর্কমেনিস্তানের আশখাবাত বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণে বাধ্য হয়। ইঞ্জিন অয়েলের ট্যাংকের একটি নাট ঢিলে থাকায় ওই বিপত্তি ঘটে।

এর পেছনে নাশকতা ছিল কি না, তা খতিয়ে দেখতে তিনটি তদন্ত কমিটি হয়। তদন্তের ভিত্তিতে বিমানের নয় কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে বিমান কর্তৃপক্ষ।

এরপরে ওই দুই কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করেন তদন্তকারীরা।

READ : 533 times

এইদিনে